1. engg.robel.seo@gmail.com : DAILY TEKNAF : DAILY TEKNAF
  2. bandhusheramizan@gmail.com : Mizanur Rahman : Mizanur Rahman
  3. engg.robel@gmail.com : The Daily Teknaf News : Daily Teknaf
"ওসীলা ওলীর"আল্লামা জালাল উদ্দীন রুমী রঃ'র মসনবী শরীফে বর্ণনা।। - ডেইলি টেকনাফ
শনিবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২১, ০৩:২৩ অপরাহ্ন
সর্বশেষ :
কক্সবাজারে কাউন্সিলর কাজি মোরশেদ আহমদ বাবুর মৃত‍্যুতে নুর হোসেন চেয়ারম্যানের শোক প্রকাশ ন্যায্যমূল্য পাচ্ছে না কক্সবাজারসহ টেকনাফের লবণ চাষীরা টেকনাফে সাবরাং ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের বিশেষ বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত অমর একুশের ভাষা শহীদদের প্রতি নুর হোসেন চেয়ারম্যানের শ্রদ্ধাঞ্জলি প্রতি হিংসা নয় প্রতিযোগিতার মাধ্যমে উঠে আসুক তৃণমূলের অবহেলিত নতুন নেতৃত্ব: শাওন আরমান টেকনাফে বিজিবির মালিকবিহীন ইয়াবা উদ্ধার টেকনাফে সাবরাং ট্যুরিজম পার্কে পাঁচ তারকা হোটেল নির্মাণের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন টেকনাফ পৌরসভায় মূলধন বিনিয়োগ পরিকল্পনা প্রস্তুতি কর্মশালা সভা অনুষ্ঠিত কক্সবাজার রামু হাইওয়ে পুলিশের হাতে বাংলা মদসহ আটক ১,সিএনজি জব্দ টেকনাফে সুচনা হলো বহুল প্রতিক্ষীত কোভিড১৯ এর প্রতিষেধক টিকাদান কার্যক্রম

“ওসীলা ওলীর”আল্লামা জালাল উদ্দীন রুমী রঃ’র মসনবী শরীফে বর্ণনা।।

  • আপডেট টাইম সোমবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী, ২০১৯

অনলাইন সম্পাদনাঃ

মিজানুর রহমান মিজান।ডেগিল্লার বিল,সাবরাং,টেকনাফ।

ওসীলা ওলীর
আল্লামা জালাল উদ্দীন রুমী রঃ মসনবী শরীফে বর্ননা করেন যে
সোলতানুল আরেফিন হযরত বায়জিদ বোস্তামী এর যোগে বোস্তাম শহরে এক বেশ্যা মেয়ের আগমন ঘটে যার সৌন্দর্য্য ও সুন্দর কন্ঠের উপর মানুষ আসেক হয়ে গেল।
মসজিদ ও খানকাহ সমুহ শুন্য হয়ে গেল
এবং বেশ্যার ঘরে তামাশা বাজদের সব সময় মেলা লেগে রইল।
কোন এক ব্যক্তি হযরত বায়জিদ বোস্তামি রঃ খেদমতে উপস্তিত হয়ে আরয করল যে
হুজুর আপনার যুগে এবং আপনার শহরে এমন পাপাচার!
হুজুর বল্লেন কি ব্যাপার?
ঐব্যক্তি সমস্ত ঘটনা আরয করলে হুজুর বললেন ঠিকানা বল
বায়জিত বোস্তামি রঃ নামাযের মসল্লা আর বদনা নিয়ে বেশ্যার ঘরের নিকটে
মসল্লা বিছিয়ে বসে গেলেন।
হুজুরকে দেখে তামাসা করতে আসা লোকজন পালিয়ে গেল
বেশ্যার ঘরে আসা যাওয়া লোক বন্ধ হয়ে গেল।
হুজুর বিছানু মসল্লাতে নফল নামায পড়তে লাগলেন।
যে ব্যাক্তি এদিকে আসত তাকে দেখে ফিরে যেত।
এভাবে, রাতের অধিকাংশ চলে গেল
আর কারো আসার আসংকা রইল না।
তখন তিনি ঐ
বেশ্যাকে জিগ্গাসা করলেন যে
দৈনিক রোজগার কত হয়।
সে যত বলল তিনি অত মুদ্রা মসল্লার নীচ থেকে বের তাকে দিয়ে দিলেন

ফকীর বুজর্গের ঝুলীতে সব থাকে
কিন্তু তাদের থেকে নেয়ার জন্য চাই
কিচু পদ্ধতি
তারা অনেক যাচাই করে সামন্য দান করেন।

অতপরঃ তিনি তাকে বললেন যে
এখন তোমার এ রাত আমি ক্রয় করে নিয়েছি।
কেননা, তোমার পাপ্য দিয়ে দিয়েছি।
সেই বলল হ্যা নিশ্চয়
তৎপর হুজুর বললেন আচ্ছা এখন আমি যা বলব তাই কর,
সেই বলল বেশ ভাল
ওযু করে আস,,,,,,,,
নফল নামাযের নিয়ত কর
থাকে নামাযে দাড় করিয়ে দিলেন
যতক্ষন সেই দাড়ানো অবস্তায় ছিল, বেশ্যাও ছিল, রুকুতে গেল তখন মেয়েটিওগেল।
যখন সেজদায় গেল তখন তার মস্তক সেজদায় অবনত হলো
হযরত বায়জিত বোস্তামি রঃ মুবারক হাত উত্তোলন আল্লাহর দরবারে আরয করলেন,,,,,,,,,
হে আল্লাহ হে মওলা আপনি শক্তিবান
আমি দুর্বল
আপনি প্রতিপালক
আমি বান্দা।
আমি দুর্বল অক্ষম অসহায় বান্দার কাজ হলো এত টুকু যে পাপীটাকে যেনা থেকে হাটিয়ে আপনার দ্বারে ঝুলিয়ে দেয়া।
সামের অবশিস্ট কাজ আপনার
আপনি এ ঝুকানো মস্তককে কবুর করে নিন
বা ফিরেয়ে নিন
যদি আপনি ফিরেয়ে নিন
তাহলে আমার দুর্নাম হবে
মানুষ বলবে বোস্তামি কি দিয়ে গেলেন।

এটা দেখবেন না যে আগমন কারী কে মওলা
দেখুনযে এনেছে কে?
যদিও আগমনকারী পাপীস্ট
কিন্তু আনয়ন কারীতো আমি গুনাহগার।
মাহবুব দঃ এর উছিলায় অন্তরের গতি পরিবর্তন করে দিন আপনি।
একথা বলতেই ঐ মেয়েটি ওলী হয়ে গেল ।
অতপরঃ পরবর্তী সময়ে তার সখী যখন তাকে ডাকত তখন সে ভিতর থেকে খবর পাঠাত যে
এখন আমি এ চক্ষে সোলতানুল আরেফিন কে দেখেছি
যে সোলাতানুল আরেফিন বায়জিদ বোস্তামিকে দেখে ফেলেছে সে আর কাউকে দেখতে পারেনা।

আপনার মন্তব্য দিন

নিউজটি শেয়ার করুন..

এ জাতীয় আরো খবর..