1. engg.robel.seo@gmail.com : DAILY TEKNAF : DAILY TEKNAF
  2. bandhusheramizan@gmail.com : Mizanur Rahman : Mizanur Rahman
  3. engg.robel@gmail.com : The Daily Teknaf News : Daily Teknaf
টেকনাফঃ"এই নাজির পাড়াতে জন্ম নেওয়াটা এক বড় অপরাধ" - ডেইলি টেকনাফ
শনিবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২১, ০৩:১৫ অপরাহ্ন
সর্বশেষ :
কক্সবাজারে কাউন্সিলর কাজি মোরশেদ আহমদ বাবুর মৃত‍্যুতে নুর হোসেন চেয়ারম্যানের শোক প্রকাশ ন্যায্যমূল্য পাচ্ছে না কক্সবাজারসহ টেকনাফের লবণ চাষীরা টেকনাফে সাবরাং ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের বিশেষ বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত অমর একুশের ভাষা শহীদদের প্রতি নুর হোসেন চেয়ারম্যানের শ্রদ্ধাঞ্জলি প্রতি হিংসা নয় প্রতিযোগিতার মাধ্যমে উঠে আসুক তৃণমূলের অবহেলিত নতুন নেতৃত্ব: শাওন আরমান টেকনাফে বিজিবির মালিকবিহীন ইয়াবা উদ্ধার টেকনাফে সাবরাং ট্যুরিজম পার্কে পাঁচ তারকা হোটেল নির্মাণের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন টেকনাফ পৌরসভায় মূলধন বিনিয়োগ পরিকল্পনা প্রস্তুতি কর্মশালা সভা অনুষ্ঠিত কক্সবাজার রামু হাইওয়ে পুলিশের হাতে বাংলা মদসহ আটক ১,সিএনজি জব্দ টেকনাফে সুচনা হলো বহুল প্রতিক্ষীত কোভিড১৯ এর প্রতিষেধক টিকাদান কার্যক্রম

টেকনাফঃ”এই নাজির পাড়াতে জন্ম নেওয়াটা এক বড় অপরাধ”

  • আপডেট টাইম সোমবার, ১৩ মে, ২০১৯

লেখকঃজাফর আলম।

কপিঃ ফেসবুক আইডি Zafar Alam

“এই নাজির পাড়াতে জন্ম নেওয়াটা
এক বড় অপরাধ””

আমাদের এই নাজির পাড়া নামটার সাথে একটা নিষিদ্ধ নাম যোগ হয়ে গেছে। তা হল বাংলাদেশের সর্ব নিকৃষ্টতর ও ভয়ানক মাদক ইয়াবা!!

এই নিষিদ্ধ ও মরণনেশা ইয়াবার কারণে আজ অনেক পরিবারে হতাশা আর হতাশা।এই ইয়াবা ব্যবসা করার কারণে অনেক ভাই ভাইকে হারাচ্ছে, অনেক মা-বাবা হারাচ্ছে তার অাদরের সন্তানকে,আবার অনেক প্রিয়তম স্ত্রী হারাচ্ছে তার প্রিয় স্বামীকে, ছোট ছোট বাচ্চারা হারাচ্ছে তাদের প্রিয় বাবাকে,এলাকাবাসী হারাচ্ছে তাদের সামনে বেড়ে উঠা ছেলে গুলোকে।

আর এই ইয়াবা সেবনের কারণে ও অনেক পরিবারের সোনার ছেলে মেয়েরা ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে প্রতিদিন।বাংলাদেশের এমন কোন এলাকা নাই যে এলাকায় ইয়াবা আসক্ত নাই।এই ইয়াবার কারণে আস্তে আস্তে ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশের যুবসমাজের একাংশ।

এখন দেখা যায় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর হাতে। বন্দুক যুদ্ধে একজন ইয়াবা গডফাদারের মৃত্যু হওয়ার খবর পেলে অনেক মানুষ খুশি হয়।আবার অনেকে আফসোস করে।একজন মানুষের এ রকম অনাকাংখিত মৃত্যুতে অনেক মানুষেরা নেগেটিভ আর পজিটিভ বক্তব্য দেয়।কিন্তু যারা এ রকম সমালোচনা করে তাদের মধ্যে ও অনেক ইয়াবা ব্যবসায়ী আছেন।কেউ কি চিন্তা করেছেন এই রকম মৃত্যু নিজের ও হতে পারে?
কিন্তু অনেক ভাল মানুষের বেশধারণ করা মানুষ এই কথাটা বিশ্বাস ও করতে চাইনা।অথচ বেশ ধারণকারীরা ও তালিকাভুক্ত ইয়াবা কারবারি। কিন্তু তাদের চাল চলনে বুঝাতে চাই তারা অতি ভাল মানুষ। আসলে তাদের এরকম স্বভাব হওয়ারই কথা!!কারণ তাদের নামে আগেই অনেক ইয়াবা মামলা থাকলেও তাদের কিছু হয়না।কারণ তাদের সাথে প্রশাসনের কর্মকর্তাদের অনেক ভাল সম্পর্ক হয়ে যায়।
অথচ এখন মিথ্যা আর বানোয়াট মামলায় আসামি হয় এলাকার নিরহ মানুষ, শিক্ষিত মহলের লোকেরা। এলাকায় যারা সুন্দর ভাবে বসবাস করতেছে তারা কোনদিন কোন মামলা না খেয়ে ও আরেক জনের মিথ্যা তথ্যের ভিত্তিতে দাগী অপরাধীদের মত মামলা খেয়ে যায় সমান তালে। যা এলাকায় বিদ্যমান দেখা যাচ্ছে। অথচ সমানতালে ঘুরে বেড়াচ্ছে তালিকাভুক্ত ইয়াবা কারবারিরা। তাদের নামে কোনদিন গায়েবি মামলা হয়না।কারণ তারা রাষ্ট্রের জন্য অপরাধী হলেও সমাজের একদম ভাল মানুষ!!

আর ও কিছু বিষয় লক্ষ করা যাচ্ছে ইদানীং। তা হল জেলে থেকে ও কিছু মানুষ গায়েবি মামলা থেকে রেহাই পাচ্ছে না। তার মধ্যে থেমে নেই আত্মসমর্পণ করা মানুষরাও।যে মামলার ভয়ে তারা আত্মসমর্পণ করেছে সে মামলা তারাও খেয়ে যায় সমান তালে!! তার একমাত্র কারণ হল সুস্থ তদন্তের অভাব!!!

পরিশেষে আমি আকুল আবেদন করি আমাদের টেকনাফ মডেল থানার সাহসী অফিসার ইনচার্জ ওসি প্রদীপ কুমার দাশের প্রতি।অনুগ্রহ করে আপনি আপনার এই সাহসী মাদক বিরুধী অভিযান কে আর ও তরান্বিত করুন।আপনার এ সাহসী অভিযান কে প্রশ্নবিদ্ধ করতে উঠে পড়ে লেগেছে আপনার থানার পাশে ঘুরাফেরা করা দালাল চক্ররা।তা না হলে আপনার থানায় কি করে নিরহ মানুষের বিপক্ষে গায়েবি মামলা হয়? কি করে আত্মসমর্পণ করা মানুষ এই বন্দুক যুদ্ধ মামলার আসামি হয়?
তার একমাত্র কারণ হল সটিক তদন্তের অভাব। আপনাকে নিরহ মানুষের দোহাই দিয়ে বলি আপনি আমাদের টেকনাফ উপজেলার বাসীর জন্য একজন সৎ ও সাহসী পুলিশ অফিসার। দয়াকরে আপনি আর ও একটু বিচক্ষণতার সঙ্গে এই অভিযান চলমান রাখুন যাতে কোন নিরহ মানুষ হয়রানির শিকার না হয়।

মাদকের কারবারিদের বিরুদ্ধে একটা কেন হাজার টা মামলা দিন।আমরা সাধারণ জনগণ আপনার এই উদ্যোগকে স্বাগত জানাব।তবে নিরপেক্ষ তদন্ত করে দিন।কারণ এখন অনেক মামলাতে নিরাপরাধ ও সাধারণ মানুষ মামলার আসামি হয়ে যাচ্ছে। তার অন্যতম উদাহরণ আত্মসমর্পণ করা মানুষ ও মামলার আসামি হচ্ছে। আপনার থানার মধ্যে সটিক তদন্ত করার মানুষের অভাব নাই। দয়া করে ওনাদের মাধ্যমে তদন্ত করে মামলা দিন ইয়াবা কারবারিদের বিরুদ্ধে এবং বাদ দিন নিরহদের….১,১৫১ জন এবং অন্যান্য সংস্থা কর্তৃক তৈরি করা মাদক ব্যবসায়ীর তালিকা দেখুন। আর চিন্তা করে দেখুন ঐ তালিকা থেকে কোন মানুষের নাম মামলাতে আসতেছে না লেখক-জাফর আলম।

সুত্রঃ-ফেসবুক আইডি

zafar alam

আপনার মন্তব্য দিন

নিউজটি শেয়ার করুন..

এ জাতীয় আরো খবর..