1. engg.robel.seo@gmail.com : DAILY TEKNAF : DAILY TEKNAF
  2. bandhusheramizan@gmail.com : Mizanur Rahman : Mizanur Rahman
  3. engg.robel@gmail.com : The Daily Teknaf News : Daily Teknaf
টেকনাফে নির্মিত হচ্ছে ৩০০ শয্যার দুটি আইসোলেশন হাসপাতাল | ডেইলি টেকনাফ - ডেইলি টেকনাফ
বুধবার, ২০ জানুয়ারী ২০২১, ০৮:০৭ অপরাহ্ন
সর্বশেষ :
সাবরাং ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের পরিচিতি ও জরুরি সভা অনুষ্ঠিত শক্তিশালী রামুকে হারিয়ে ইতিহাসের প্রথমবার ফাইনালে টেকনাফ টেকনাফ পৌরসভার ৮নং ওয়ার্ডে মোঃ আলমগীরকে কাউন্সিলর হিসেবে দেখতে চাই এলাকাবাসী মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে সাবরাং ইউ,পি ছাত্রলীগের সাঃসম্পাদক নজরুল ইসলামের খোলা চিঠি টেকনাফে যুবলীগ নেতাকে গুলি করে হত্যা,আওয়ামীলীগ ও অঙ্গ সংগঠনের প্রতিবাদ ও নিন্দা টেকনাফ উপজেলা আ.লীগ সাংগঠনিক সম্পাদক আলহাজ্ব এজাহার মিয়ার নববর্ষের শুভেচ্ছা সাবরাং ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি আবুল কালামের নতুন বছরের শুভেচ্ছা অসুস্থ ছেনোয়ারার চিকিৎসার জন্য ৫০ হাজার টাকা দান করলেন টেকনাফ পৌর মেয়র হাজ্বী মোহাম্মদ ইসলাম ঈদগাঁওতে সাংবাদিককে মামলায় জড়ানোর প্রতিবাদে দুই বাংলা অনলাইন সাংবাদিক ফোরামের মানববন্ধন টেকনাফ পৌরসভায় বিশ্বব্যাংকের অর্থায়নে সাড়ে ৩৫ কোটি টাকার প্রকল্প পরিদর্শন করেন শেখ মুজাক্কা জাহের

টেকনাফে নির্মিত হচ্ছে ৩০০ শয্যার দুটি আইসোলেশন হাসপাতাল | ডেইলি টেকনাফ

  • আপডেট টাইম সোমবার, ১১ মে, ২০২০

পিকলু দত্ত | টেকনাফ 

টেকনাফে পৃথকভাবে নির্মিত হচ্ছে ৩০০ শয্যা বিশিষ্ট দুটি আইসোলেশন হাসপাতাল। আপাতত করোনা রোগীদের এই দুই হাসপাতালে চিকিৎসা সেবা দেওয়া হবে। জাতিসংঘের অভিবাসন সংস্থা আইওএমের অর্থায়নে ১০০ শয্যা বিশিষ্ট ও আইসিডিডিআর’বির অর্থায়নে ২০০ শয্যা বিশিষ্ট পৃথক দুটি আইসোলেশন হাসপাতাল নির্মাণ করা হচ্ছে।

আইওএম কতৃক হাসপাতালটি তৈরি হচ্ছে টেকনাফের হ্নীলা ইউনিয়নের লেদার অস্থায়ী রোহিঙ্গা শিবিরে। অপরদিকে আইসিডিডিআর’বির কতৃক হাসপাতালটি তৈরি হচ্ছে উপজেলার আইসিডিডিআর’বির ডায়রিয়া হাসপাতাল কমপ্লেক্সে।

হাসপাতাল দুটির অবকাঠামোর কাজ চলছে দ্রুত গতিতে। ইতিমধ্যে আইওএম কতৃক নির্মানাধীন হাসপাতালের কাজ এই মাসের শেষের দিকে শেষ হবে। আগামী মাসের শুরু থেকে পুরোদমে চিকিৎসা সেবা চলবে। অপরদিকে আইসিডিডিআর’বি কর্তৃক হাসপাতালের কাজও চলছে দ্রুত গতিতে। আগামী মাসের মাঝামাঝি সময়ে এই হাসপাতালের কাজ শেষ হতে পারে।

টেকনাফ উপজেলা নির্বাহি অফিসার সাইফুল ইসলাম সাইফ বলেন, টেকনাফের বিপুল স্থানীয় ও রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর ভবিষ্যৎ চিন্তা করে পৃথকভাবে ৩০০ শয্যা বিশিষ্ট দুটি আইসোলেশন হাসপাতাল তৈরির উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। স্থানীয়ও রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠী উভয়কে চিকিৎসা সেবা দেওয়া হবে পৃথক এই দুই হাসপাতালে।

টেকনাফ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের পরিবার ও পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ টিটু চন্দ্র শীল বলেন, টেকনাফের রোহিঙ্গা শিবিরে এখনও পর্যন্ত কোন রোহিঙ্গা করোনায় আক্রান্ত হয়নি। তবে উপজেলাতে এ পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৬ জন। করোনা ভাইরাস প্রাদুর্ভাবের ভবিষৎ চিন্তা করে টেকনাফে পৃথক দুটি আইসোলেশন হাসপাতাল নির্মাণ করা হচ্ছে। লেদা রোহিঙ্গা শিবিরে আইওএম কতৃক নির্মিত ১০০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে রোহিঙ্গা জনগোষ্টি ছাড়া শিবির সংলগ্ন পার্শ্ববর্তী স্থানীয় জনগোষ্ঠীদের চিকিৎসা সেবা দেওয়া হবে। অপরদিকে আইসিডিডিআর’বি কতৃক নির্মিত ২০০ শয্যা বিশিষ্ট আইসোলেশন হাসপাতালে উপজেলার স্থানীয়দের চিকিৎসা সেবা দেওয়া হবে।

আপনার মন্তব্য দিন

নিউজটি শেয়ার করুন..

এ জাতীয় আরো খবর..