1. engg.robel.seo@gmail.com : DAILY TEKNAF : DAILY TEKNAF
  2. bandhusheramizan@gmail.com : Mizanur Rahman : Mizanur Rahman
  3. engg.robel@gmail.com : The Daily Teknaf News : Daily Teknaf
টেকনাফে বন্দুক যুদ্ধে নিহত আরিফের দাফন সম্পন্ন - ডেইলি টেকনাফ
শনিবার, ১৬ জানুয়ারী ২০২১, ০১:২০ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ :
মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে সাবরাং ইউ,পি ছাত্রলীগের সাঃসম্পাদক নজরুল ইসলামের খোলা চিঠি টেকনাফে যুবলীগ নেতাকে গুলি করে হত্যা,আওয়ামীলীগ ও অঙ্গ সংগঠনের প্রতিবাদ ও নিন্দা টেকনাফ উপজেলা আ.লীগ সাংগঠনিক সম্পাদক আলহাজ্ব এজাহার মিয়ার নববর্ষের শুভেচ্ছা সাবরাং ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি আবুল কালামের নতুন বছরের শুভেচ্ছা অসুস্থ ছেনোয়ারার চিকিৎসার জন্য ৫০ হাজার টাকা দান করলেন টেকনাফ পৌর মেয়র হাজ্বী মোহাম্মদ ইসলাম ঈদগাঁওতে সাংবাদিককে মামলায় জড়ানোর প্রতিবাদে দুই বাংলা অনলাইন সাংবাদিক ফোরামের মানববন্ধন টেকনাফ পৌরসভায় বিশ্বব্যাংকের অর্থায়নে সাড়ে ৩৫ কোটি টাকার প্রকল্প পরিদর্শন করেন শেখ মুজাক্কা জাহের বঙ্গোপসাগরে অভিযান চালিয়ে ২লাখ ৭০হাজার ইয়াবাসহ ট্রলার জব্দ সাবরাং ইউনিয়ন কৃষকলীগের ১-৯ ওয়ার্ডের কমিটি অনুমোদন সভা সম্পন্ন টেকনাফে র‍্যাবের গুলিতে রোহিঙ্গা মাদক কারবারীর প্রাণহানি

টেকনাফে বন্দুক যুদ্ধে নিহত আরিফের দাফন সম্পন্ন

  • আপডেট টাইম শনিবার, ১৬ মে, ২০২০

নিউজ ডেস্ক ::

হুমায়ূন রশিদ : টেকনাফে সদর ইউপির সাগর উপকূলীয় অঞ্চলের ভূমি দস্যু, ত্রাস, মাদক কারবারী ও ঘাতক আরিফ পুলিশের সাথে বন্দুক যুদ্ধে গুলিবিদ্ধ হয়ে হাসপাতালে নিহত হয়েছে। এই ঘটনায় পুলিশের ৩জন সদস্য আহত হয়। পোস্ট মর্টেম শেষে মৃতদেহ বাড়িতে এনে দাফন করা হয়েছে।

জানা যায়, ১৬ মে (শনিবার) ভোররাত ৩টারদিকে টেকনাফ মডেল থানার একদল পুলিশ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ভূমি দস্যু, ত্রাস, মাদক কারবারী ও হত্যাসহ অর্ধডজনাধিক মামলার মোস্ট ওয়ানটেড ফেরারী আসামী সদর ইউপির মহেশখালীয়া পাড়ার সাবেক মেম্বার নুরুল ইসলামের পুত্র আরিফুল ইসলাম (২২) দলবদ্ধ হয়ে স্বশস্ত্র অবস্থায় মহেশখালীয়া মৎস্যঘাটে অবস্থানের খবর পেয়ে অভিযানে যায়। তারা পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলিবর্ষণ করলে এএসআই রামধন দাশ, সাইফুদ্দিন ও কনস্টেবল রমন দাশ আহত হয়। পরে পুলিশ শক্তি সঞ্চয় করে বেশ কয়েক রাউন্ড পাল্টা গুলিবর্ষণ করলে হামলাকারী চক্র পালিয়ে যায়।

পরে পুলিশ ঘটনাস্থল তল্লাশী করে অস্ত্রাদিসহ গুলিবিদ্ধ আরিফুল ইসলাম ওরফে আরিফকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য টেকনাফ উপজেলা সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে আহত পুলিশ সদস্যদের প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে গুলিবিদ্ধ আরিফকে উন্নত চিকিৎসার জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালে রেফার করা হয়। সেখানে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক আরিফকে মৃত ঘোষণা করে। মৃতদেহ উদ্ধার করে মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।

এই অভিযানের বিষয়ে টেকনাফ মডেল থানার পক্ষ থেকে প্রেস ব্রিফিংয়ের মাধ্যমে বিস্তারিত জানানো হয়নি।

এদিকে নিহত আরিফের মৃতদেহ পোস্টমর্টেম শেষে বিকেলে বাড়িতে আনা হয় এবং বিকাল সোয়া ৫টায় মহেশখালীয়া পাড়া প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে জানাজা শেষে স্থানীয় গোরস্থানে দাফন করা হয়েছে।

স্থানীয় সুত্র জানায়, দীর্ঘদিনের জমি জমা বিরোধ, আধিপত্য বিস্তার, তুচ্ছ ঘটনায় খুন এবং মাদক বাণিজ্য নিয়ন্ত্রণ করতে গিয়েই বিশেষ মহলের ছত্রছায়ায় এত অল্প বয়সে এই আরিফ দূধর্ষ হয়ে উঠে। একের পর এক মামলায় সে হয়ে পড়ে বেপরোয়া এবং পুলিশের খাতায় মোস্ট ওয়ানটেড আসামী। বন্দুক যুদ্ধে আরিফ নিহত হলেও এই গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্ট দিয়ে কথিত বাণিজ্য নিয়ন্ত্রণে আরো কয়েকটি গ্রæপ সক্রিয় আছে। পুরো এলাকা শান্তিপূর্ণ বসবাসের উপযোগী করতে হলে সব অপরাধীদের কঠোর হাতে দমনের দাবী উঠেছে।

সুত্র:’টেকনাফ টুডে

আপনার মন্তব্য দিন

নিউজটি শেয়ার করুন..

এ জাতীয় আরো খবর..