1. engg.robel.seo@gmail.com : DAILY TEKNAF : DAILY TEKNAF
  2. bandhusheramizan@gmail.com : Mizanur Rahman : Mizanur Rahman
  3. engg.robel@gmail.com : The Daily Teknaf News : Daily Teknaf
টেকনাফে ভিক্ষুক পুনর্বাসনের উদ্যোগ - ডেইলি টেকনাফ
বৃহস্পতিবার, ২১ জানুয়ারী ২০২১, ০৮:৩১ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ :
কক্সবাজারে ৫৩৫ কোটি টাকা মূল্যের বিভিন্ন মাদক ধ্বংস করছে বিজিবি ঈদগাঁও থানা উদ্বোধন করলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাবরাং ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের পরিচিতি ও জরুরি সভা অনুষ্ঠিত শক্তিশালী রামুকে হারিয়ে ইতিহাসের প্রথমবার ফাইনালে টেকনাফ টেকনাফ পৌরসভার ৮নং ওয়ার্ডে মোঃ আলমগীরকে কাউন্সিলর হিসেবে দেখতে চাই এলাকাবাসী মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে সাবরাং ইউ,পি ছাত্রলীগের সাঃসম্পাদক নজরুল ইসলামের খোলা চিঠি টেকনাফে যুবলীগ নেতাকে গুলি করে হত্যা,আওয়ামীলীগ ও অঙ্গ সংগঠনের প্রতিবাদ ও নিন্দা টেকনাফ উপজেলা আ.লীগ সাংগঠনিক সম্পাদক আলহাজ্ব এজাহার মিয়ার নববর্ষের শুভেচ্ছা সাবরাং ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি আবুল কালামের নতুন বছরের শুভেচ্ছা অসুস্থ ছেনোয়ারার চিকিৎসার জন্য ৫০ হাজার টাকা দান করলেন টেকনাফ পৌর মেয়র হাজ্বী মোহাম্মদ ইসলাম

টেকনাফে ভিক্ষুক পুনর্বাসনের উদ্যোগ

  • আপডেট টাইম বৃহস্পতিবার, ২৬ ডিসেম্বর, ২০১৯

নিউজ ডেস্ক ::

ভিক্ষুক মুক্ত দেশ গড়ার লক্ষ্যে কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলায় ভিক্ষুকদের পুনর্বাসনের উদ্যোগ নিয়েছে উপজেলা প্রশাসন। এতে উপজেলায় ছয়টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভার আড়াই শতাধিক ভিক্ষুককের একটি তালিকা করা হয়েছে।  বুধবার (২৫) ডিসেম্বর দুপুর থেকে বিকেল পর্যন্ত উপজেলা পরিষদ প্রাঙ্গনে সেই তালিকা যাচাই-বাচাই শেষ করেছে উপজেলা প্রশাসন। এসময় উপস্থিত ছিলেন, কক্সবাজার অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ শাজাহান আলি, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম, সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোহাম্মদ আবুল মনসুর, বাহারছড়ার ইউপি চেয়ারম্যান আজিজ উদ্দিন, হ্নীলার ইউপি চেয়ারম্যান রাশেদ মুহাম্মদ আলী প্রমুখ। এসময় উপস্থিত আড়াই শতাধিক ভিক্ষুকদের মাঝে শীত বস্ত্র (কম্বল) তুলে দেন অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট।

উপজেলা প্রশাসন জানায়, ভিক্ষুক মুক্ত দেশ গড়তে সরকার তাদের পুনর্বাসনের উদ্যোগ হাতে নিয়েছে। তারই সুত্রে ধরেই গত কয়েকদিন আগে একটি বৈঠকের মাধ্যামে জনপ্রতিনিধিদের স্বস্ব এলাকার ভিক্ষুককের তালিকায় দিতে বলা হয়। তালিকায় হাতে পাওয়ায় সেটি বাস্তাবায়নের লক্ষ্যে দ্রুত গতিতে টেকনাফ উপজেলায় কাজ চলছে। ইতি মধ্যে উপজেলার উপজেলায় ছয়টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভার তৈরী করা আড়াই শতাধিক ভিক্ষুককের তালিকা যাচাই-বাচাই করা হয়েছে। যাতে প্রকৃত ভিক্ষুকদের পুনর্বাসন করতে সহজ হয়। যার যার সামর্থ অনুসারে সরকার তাদের দোকান ঘর, ছাগল, হাঁস, মুরগি, দর্জি কাজ ও ব্যবসায়িক উপকরণ বিতরণ করবেন।
জনপ্রতিনিধিরা জানায়, অসহায় মানুষ যেমন পেটের দায়ে ভিক্ষা করে, তেমনি একটি স্বার্থান্বেষী মহল বিভিন্ন কায়দা-কানুন করে ভিক্ষাবৃত্তিকে নিজেদের জন্য লাভজনক বৃত্তিতে পরিণত করেছে। ভিক্ষুকেরা মারাত্মকভাবে অপব্যবহৃত হচ্ছে। সব ধরনের শারীরিক সুস্থতা থাকা সত্ত্বেও শুধু পরিশ্রম করার মানসিকতার অভাবে ভিক্ষাবৃত্তির আশ্রয় নেয় এমন ভিক্ষুকও আছে। তাছাড়া আমাদের দেশে যাঁরা মুক্ত হস্তে দান-দক্ষিণা করেন ও ভিক্ষা দেন, তাঁরা সচেতন হলেই ভিক্ষাবৃত্তির প্রকোপ অনেকটা হ্রাস করা সম্ভব।

ইউএনও মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম বলেন, ‘জেলা প্রশাসকের নির্দেশনা পাওয়ার পর জনপ্রতিনিধিদের সহযোগিতায় ভিক্ষুক শনাক্ত করে একটি তালিকা করা হয়েছে। সেটি যাচাই-বাচাই শেষে তাদের দর্জির কাজসহ বিভিন্ন ধরনের প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে, যাতে তারা নিজেরাই কাজ করে উপার্জন করতে পারেন। চাহিদা অনুযায়ী কাউকে সেলাই মেশিন, কাউকে হাস-মুরগি কিনে দেওয়াসহ মুদি দোকান করে দেওয়া হবে।’

কক্সবাজার অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ শাজাহান আলি বলেন, ‘ভিক্ষাবৃত্তি অসম্মানজনক পেশা। তারা পরিবার-সমাজ ও দেশের সম্মান নষ্ট করছে। এর অবসান হওয়া উচিত। তাই সরকার ভিক্ষুক মুক্ত দেশ গড়ার প্রয়াসে তাদের পূর্বাসানের কাজ শুরু হয়েছে। এ লক্ষ্যে টেকনাফকে ভিক্ষুকমুক্ত করার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।’

আপনার মন্তব্য দিন

নিউজটি শেয়ার করুন..

এ জাতীয় আরো খবর..