1. engg.robel.seo@gmail.com : DAILY TEKNAF : DAILY TEKNAF
  2. bandhusheramizan@gmail.com : Mizanur Rahman : Mizanur Rahman
  3. engg.robel@gmail.com : The Daily Teknaf News : Daily Teknaf
বৃহস্পতিবার, ২৬ নভেম্বর ২০২০, ০৩:৫০ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ :
টেকনাফে শাহপরীর দ্বীপের বেড়িবাধ পুনঃনির্মাণ প্রকল্প পরিদর্শন করেন এমপি শাওন। হোয়াইক্যং নয়াবাজারের মহিয়সী নারী শামসুন নাহারের ২২তম মৃত্যু বার্ষিকী আজ মাওলানা গোলাম সারোয়ার সাঈদীর ইন্তেকাল শাহ্পরীর দ্বীপে হতদরিদ্রদের মাঝে(IOM)সংস্থার নগদ ৩৫ হাজার টাকা বিতরণ উদ্বোধন করেন নুর হোসেন চেয়ারম্যান আব্দুর রহমানের মৃত্যুতে টেকনাফ উপজেলা রেন্ট-এ কার,নোহা,মাইক্রো মালিক সমবায় সমিতির শোক প্রকাশ ইসলামপুর ইউপি নির্বাচনে সম্ভাব্য চেয়ারম্যান পদে নতুন মুখ সাংবাদিক শাহাজাহান শাহীন ভাল থেকো আব্বু টেকনাফে সাবরাং নয়াপাড়ায় ৬ষ্ঠ শ্রেনীর ছাত্রীকে ধর্ষণ ও অপহরণকারী সাইফুল ইসলামকে ধরিয়ে দিতে সাহায্য করুন আইন শৃঙ্খলা রক্ষায় শীঘ্রই অভিযান পরিচালনা করা হবে, ওসি টেকনাফ বীর মুক্তিযোদ্ধা সাবেক সাংসদ অধ্যাপক মোহাম্মদ আলীর মৃত্যুতে আবুল কালামের গভীর শোক প্রকাশ।

পুলিশ ট্রেনিং সেন্টারে যাওয়ার পূর্বে যা করণীয়

  • আপডেট টাইম বুধবার, ২১ আগস্ট, ২০১৯

ডেইলি টেকনাফ ডেস্ক ::

চলতি মাসেই ট্রেইনি রিক্রুট কনস্টেবলের ছয় মাস মেয়াদী মৌলিক প্রশিক্ষণের জন্য বাংলাদেশ পুলিশের বিভিন্ন ট্রেনিং সেন্টারে ছয় মাস মেয়াদী মৌলিক ট্রেনিংয়ের উদ্দেশ্যে রওনা দিতে হবে। সেজন্য ট্রেনিং সেন্টারে যাওয়ার পূর্বে কি করতে হবে তা জেনে নিনঃ

☞ ট্রেনিং সেন্টারে যাওয়ার সময় যে সকল জিনিস পত্র অবশ্যই নিয়ে যাবেনঃ

১। পোষাকঃ ব্যবহার করার জন্য পোশাক যেমন শার্ট, প্যান্ট, লুঙ্গি, গামছা, এবং পর্যাপ্ত পরিমাণে সাদা সুতি গেঞ্জি ও আন্ডারওয়ার। আরও সাথে নিতে হবে একটি ট্রাকস্যুট, একটি সাদা শার্ট ও কালো প্যান্ট এবং সাদা পাঞ্জাবি (মুসলমানদের জন্য)

২। খাবারঃ প্রতিদিন সকালে পিটি করার আগে অল্প পরিমাণে নাস্তা করা প্রয়োজন। তাই শুকনো খাবার হিসেবে বিস্কুট, চানাচুর, চিড়া, গুড় ইত্যাদি নিতে পারেন। আরও নিতে হবে কিসমিস, ও ছোলা ও খাটি সরিষার তেল।

৩। ঔষুধঃ ট্রেনিং সেন্টারে প্রাথমিক চিকিৎসা নিজে নিজে করার জন্য কিছু প্রয়োজনীয় ওষুধ সাথে নিতে হবে যেমন নাপা, এ্যামোডিস, সিনামিন, হিসটাসিন ইত্যাদি (বিদ্রঃ ট্রেনিং সেন্টারে পুলিশ মেডিকেল থেকে ওষুধ সরবরাহ করা হয়)। আরোও নিতে হবে মুভ বা ফাস্ট জাতীয় মলম। যে জিনিসটি একবারে প্রয়োজনীয় সেটি হচ্ছে স্যালাইন। পর্যাপ্ত পরিমাণে স্যালাইন নিতে হবে।

৪। বেডিংপত্রঃ বেডিংয়ের জন্য বেশী কিছু নেওয়ার প্রয়োজন নেই একটি নরম বালিশ, বেডশিট ও একটা পাতলা তোষক নিলেই চলবে।

৫। চিত্তবিনেদন সামগ্রীঃ ট্রেনিং করতে হবে ছয় মাস তিন মাস পর বাসায় আসতে পারবেন একবার, ট্রেনিংয়ের মাঝে ঈদ হলে আর একবার বাসায় আসার সুযোগ পাওয়া যাবে। তাই এই লম্বা সময়টি পরিবার-বন্ধু-আত্নীয়স্বজন ছাড়া থাকতে হবে। এই জন্য নিজের মনকে ঠিক রাখার জন্য এমন কিছু জিনিস সাথে নিতে হবে যেগুলো দেখলে আপনার মন ভালো হয়ে যাবে। যেমনঃ ফ্যামিলি ফটো এ্যালবাম, ডায়েরি, প্রিয় শিল্পীর গানের মেমরি কার্ড ও ছোট্ট এমপিথ্রি সাথে ভালো হেডফোন।
☞ প্রশিক্ষণকালীন সুযোগ সুবিধাঃ

ক. ট্রেইনি রিক্রুট কনস্টবল (পুরুষ / মহিলা) প্রশিক্ষণার্থী হিসেবে বিনামূল্যে পোশাক সামগ্রী থাকা-খাওয়া ও চিকিৎসা সুবিধা প্রাপ্য হবে।

খ. এছাড়াও প্রশিক্ষণকালীন প্রতি মাসে ৭৫০/- (সাতশত পঞ্চাশ) টাকা হরে প্রশিক্ষণ ভাতা প্রাপ্য হবে।

( বিদ্রঃ নিজের অতিরিক্ত হাত খরচের জন্য পকেট মানি সাথে নিতে হবে)

☞ ট্রেনিং সেন্টারে যাওয়ার সময় যে সকল জিনিস পত্র নিয়ে যাবেন নাঃ
১। মোবাইল ফোন
২। নেশাজাতীয় দ্রব্য
৩। অতিরিক্ত কাপড়চোপড়
৪। জুয়া খেলার সামগ্রী

যারা ধূমপান করেন তারা ট্রেনিং সেন্টারে যাওয়ার আগেই তা পরিত্যাগ করুন কারন ধূমপান করলে শ্বাসকষ্টের ফলে দৌড়াতে সমস্যা হয়। আর ট্রেনিং সেন্টারে ট্রেনিংয়ের চেয়ে দৌঁড়ের পরিমাণই বেশী।

উল্লেখঃ আরও কিছু বিষয় বাদ থাকলে পরবর্তীতে এই পোষ্টে যুক্ত করা হবে অথবা কমেন্ট দেখুন। সব রিক্রুট কনস্টেবলকে পোষ্টটি পড়ার জন্য শেয়ার করবেন।

লেখকঃ স্বাধীন হোসাইন

আপনার মন্তব্য দিন
এ জাতীয় আরো খবর..