1. engg.robel.seo@gmail.com : DAILY TEKNAF : DAILY TEKNAF
  2. bandhusheramizan@gmail.com : Mizanur Rahman : Mizanur Rahman
  3. engg.robel@gmail.com : The Daily Teknaf News : Daily Teknaf
শুক্রবার, ০৫ জুন ২০২০, ০৭:৫৬ অপরাহ্ন
সর্বশেষ :
আধ‍্যাত্মিক সাধক আল্লামা শাহ আবদুল জব্বার (রহঃ) এর সংক্ষিপ্ত জীবনী | টেকনাফ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে স্থাপিত হলো করোনা সন্দেহজনক রোগী’র স্যাম্পল কালেকশন বুথ কক্সবাজার জেলার দুই লক্ষাধিক জেলে পরিবারে হাহাকার কক্সবাজারে প্লাজমা সংগ্রহে কাজ করবে করোনা সহায়তা তহবিল | কুতুপালং স্টেশনে রাস্তার উপর গাড়ি পার্কিংয়ে বাড়ছে দীর্ঘ যানজট | ডেইলি টেকনাফ বাড়তি ভাড়া আদায় বন্ধে বিআরটিএর ভ্রাম্যমাণ আদালত উপকূলে হবে উঁচু বাঁধ, ৩ হাজার কোটি টাকার প্রকল্প বাচতে হলে অন‍্যের বলার আগেই নিজে সচেতন হওয়ার প্রানপণ চেষ্টা করি | জেলা পুলিশ সুপার শাহাবুদ্দিনের শরীরে করোনা,রক্তেও করোনা | ডেইলি টেকনাফ বৃদ্ধ নুরুল আলমকে নির্যাতনে জড়িতদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা -অতিরিক্ত পুলিশ সুপার

ভুতুড়ে ভোটে নির্ধারিত হয়েছে ফল?

  • আপডেট টাইম শনিবার, ৮ ডিসেম্বর, ২০১৮

স্পোর্টস ডেস্কঃ-

এ বছরের ব্যালন ডি’অর জিতেছেন লুকা মদরিচ, ১০ বছরের মেসি-রোনালদোর রাজত্ব ভেঙে নতুন রাজার আসরে বসেছেন মদরিচ। সাংবাদিকদের ভোটে রোনালদো-মেসি দুজনকেই বিশাল ব্যবধানে হারিয়ে ব্যালন ডি’অর জিতেছেন মদরিচ। কিন্তু ব্যালন ডি’অর জেতার পর থেকেই বারবার প্রশ্ন উঠছে সাংবাদিকদের ভোট নিয়ে। ব্যালন ডি’অরে ভোট দিয়েছেন এমন এক সাংবাদিকের কোনো অস্তিত্বই নেই!

দ্বীপরাষ্ট্র কোমোরসের সাংবাদিক হিসেবে ভোট দিয়েছেন আবদু বইনা। তাঁর নামের নিচে থাকা ওয়েবসাইট আল বালাদ কোমোরস ডটকম। কিন্তু মজার ব্যাপার হচ্ছে, সেই ওয়েবসাইটে বর্তমানে কিছুই নেই। এ ওয়েবসাইট আজ থেকে ছয় বছর আগে অর্থাৎ ২০১২ সালেই বন্ধ হয়ে গিয়েছে। সেই ওয়েবসাইটেই ফটোগ্রাফার হিসেবে কাজ করা তাইমিনৌ আবদৌ বলেছেন, ‘যখন ব্যালন ডি’অর ভোটিংয়ে আল বালাদ কোমোরস ডটকমের নাম দেখি, প্রথমে ভেবেছিলাম ভুলভাল দেখছি। কারণ এই সাইট আজ থেকে ৬ বছর আগেই বন্ধ হয়ে গিয়েছে এবং সেখানে আবদু বইনা নামে কোনো সাংবাদিকও ছিল না। সেখানে দুজন সাংবাদিক ছিল, ফ্রেঞ্চ এডিশনের জন্য আবদুল ইউসুফ আর আরব এডিশনের জন্য শরিফ ওসিন।’

এমনকি কোমোরস জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশনের প্রধান স্টেফানি আহমেদিও বলেছেন তাঁদের সংগঠনে এই নামের কোনো সাংবাদিক নেই। ‘আবদুল বইনা নামে আমাদের রেকর্ডে কোনো সাংবাদিক নেই। আমি বুঝতে পারছি, ফ্রেঞ্চ ফুটবলের কোনো ভুল হয়েছে। এই নামে কোনো লোক বা এই নামে কোনো ওয়েবসাইট বর্তমানে নেই।’ শুধু সাংবাদিক বা ওয়েবসাইট নয়, কোমোরস নামের দ্বীপরাষ্ট্রের পতাকা পর্যন্ত ভুল দেওয়া হয়েছে। ফ্রেঞ্চ ফুটবলের প্রকাশ করা তালিকায় কোমোরসের পতাকা হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে ১৯৯৬ থেকে ২০০১ সাল পর্যন্ত ব্যবহার করা কোমোরসের পতাকা।

মদরিচের জন্য স্বস্তির ব্যাপার, কোমোরসের সাংবাদিক আবদু বইনার চোখে সেরা খেলোয়াড় হয়েছেন কিলিয়ান এমবাপ্পে। ফ্রান্সের এই তরুণকে সেরা বলে এরপর বইনা বেছে নিয়েছেন মদরিচ, ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো, এডেন হ্যাজার্ড ও মোহাম্মদ সালাহকে। প্রত্যেকের পাওয়া পয়েন্ট যথাক্রমে ৩৪৭, ৭৫৩, ৪৭৪, ১১৯ ও ১৮৮। এ পয়েন্ট থেকে ৬, ৪, ৩, ২, ১ পয়েন্ট বাদ দিলেও অবশ্য খেলোয়াড়দের অবস্থানের নড়চড় হচ্ছে না। এতে অবশ্য সব সমস্যা উড়িয়ে দেওয়া যায় না।

কিছুদিন আগে অন্য আরেক সাংবাদিক অভিযোগ করেছিলেন যে তাঁর ভোট উল্টো করে গণনা করা হয়েছে। এবারের ব্যালন ডি’অর বিতর্কের জন্ম দিয়েই যাচ্ছে।

আপনার মন্তব্য দিন
এ জাতীয় আরো খবর..