1. engg.robel.seo@gmail.com : DAILY TEKNAF : DAILY TEKNAF
  2. bandhusheramizan@gmail.com : Mizanur Rahman : Mizanur Rahman
  3. engg.robel@gmail.com : The Daily Teknaf News : Daily Teknaf
শাহাবুদ্দিনের শরীরে করোনা,রক্তেও করোনা | ডেইলি টেকনাফ - ডেইলি টেকনাফ
বুধবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২১, ০১:২৭ অপরাহ্ন
সর্বশেষ :
রোহিঙ্গা শিবিরে দুই অস্ত্রধারী দলের গোলাগুলি, নিহত ১ সাবরাং নয়াপাড়া অমর একুশে গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের শুভ উদ্বোধন করেন নুর হোসেন বিএ সপরিবারে সেন্টমার্টিনে সফরে পুলিশ মহাপরিদর্শক বেনজীর আহমেদ কক্সবাজারে ৫৩৫ কোটি টাকা মূল্যের বিভিন্ন মাদক ধ্বংস করছে বিজিবি ঈদগাঁও থানা উদ্বোধন করলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাবরাং ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের পরিচিতি ও জরুরি সভা অনুষ্ঠিত শক্তিশালী রামুকে হারিয়ে ইতিহাসের প্রথমবার ফাইনালে টেকনাফ টেকনাফ পৌরসভার ৮নং ওয়ার্ডে মোঃ আলমগীরকে কাউন্সিলর হিসেবে দেখতে চাই এলাকাবাসী মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে সাবরাং ইউ,পি ছাত্রলীগের সাঃসম্পাদক নজরুল ইসলামের খোলা চিঠি টেকনাফে যুবলীগ নেতাকে গুলি করে হত্যা,আওয়ামীলীগ ও অঙ্গ সংগঠনের প্রতিবাদ ও নিন্দা

শাহাবুদ্দিনের শরীরে করোনা,রক্তেও করোনা | ডেইলি টেকনাফ

  • আপডেট টাইম বুধবার, ৩ জুন, ২০২০

শাহাবুদ্দিন এর শরীরে করোনা। রক্তেও করোনা |………..✍ ইমাউল হক পিপিএম

প্রিয় পাঠক।মানে যে পড়বেন সেই তো আমার কাছে পাঠক।তবে কথা থাকতে পাড়ে কেউ যদি না পড়ে তাহলে কাকে সম্মোধন করছি।আশা করি পড়বেন। যুগ জামানা যা শুরু হয়েছে অন্তত এই ঘটনা পড়েন। অহরহ ঘটছে। পড়লে তবুও নিজের বেলায় ঘটলে কষ্ট কম পাবেন। আর গভীর ভাবে বুঝলে শাহাবুদ্দিন এর মত পরিনীতি এড়ানো সম্ভব হতে পারে।

তাই আপনার ?না আমার?না না আমাদের সকলের
স্ত্রী, সন্তান মানুষের অতি আপন জন।এক সময় সন্তান ছোট থাকলে সন্তানের মাতৃত্ব জাগানোর জন্য পিতা তার স্ত্রী কে সুস্থ রাখা বা বাঁচিয়ে রাখার চেষ্টা করে।
সাধারণ ত আপনি যদি একত্রিত পিতা মাতার স্নেহ পেয়ে বড় হয়ে থাকেন তাহলে আপনার সন্তান কেও সেই অধিকার ভোগ করার চেষ্টা থাকবে।

নারীকে , স্ত্রী চরিত্র বহন করতে হয় বহুদিন ।শিশুকেও সন্তান চরিত্র ভুমিকা নিতে হয় পিতা মাতার জীবদ্দশায়।
শাহাবুদ্দিন তার স্ত্রী, সন্তান দের নিকট আকুতি মিনতি করেছিল।করোনা আক্রান্ত বলে খাবার পানি পায়নি।তার স্ত্রী সন্তান দেয় নি।কিন্তু পুলিশ দিয়েছে অনেক ঘরে ঘরে। শাহাবুদ্দিন যদি কোন থানার বারান্দায় যেয়ে পড়ে থাকত তাহলে খাবার ও পেত উল্টো চিকিৎসা ও পেত ।

উল্টো তাকে ঘরে উঠায়ে শিকল দিয়ে আটকিয়ে রেখেছে।যদি ঘটনা সঠিক না হয় তাহলে তো ভাল

আর যদি সত্যি হয়। তাহলে তার স্ত্রী ইতিহাসের সবচেয়ে ঘৃনিত কাজ করেছেন বৈকি!আর সন্তান আরো জঘন্য। কাম্প পুরুষদের মতোই। যে খানে দুরত্ব বজায় রেখে ও খাবার দেওয়া যেত।বা দুরু দুরু করে থানায় রেখে আসলে থানা ই সন্তানের কাজ করত ।
প্রশ্ন হচ্ছে রক্তের গতি উল্টো দিকে গেল কেন।স্ত্রী সে তো রক্তের কেউ নয়।ভিন্ন মাত্রা য় দুই এক জন নারী এমন ভূমিকা র নাটকে ভিলেন হয়।তার

আদর্শ, উদ্যোগ, উদ্দেশ্য, বিধেয়, কল্পনা, ঈশারা,জবান,কাজ,মায়া ,দয়া, ভালোবাসা, আশা,চিন্তা, চেতনা,সংসার সংস্পর্শ,ঈদ ,এষনা, কামনা,বাসনা, চলা ফেরা,তাকানো, দৃষ্টি, ভংগি,প্রকাশ, অবয়ব, অভিনয় আত্মা যাবতীয় কিছু গন শৈচাগার থেকে সৃষ্টি। তারা জীবিত থেকেও একটি সমাজে নিকৃষ্ট কাজ করে বহাল তবিয়তে সংবাদের শিরোনাম। বাহ !বাহ!মারহাবা।
জানিনা শাহাবুদ্দিন বন্ধী থেকে অক্সিজেন না পেয়ে মরতে মরতে ডিভোর্স দিয়েছে কিনা?

তার ছেলে বা মেয়ে কেউ কাছে যায় নাই।খাবার তো দুরে থাক পানি পাই নি ।দরজা খোলার চেষ্টা করেও পারেনি।হায়রে রক্ত। এ তো বিজ্ঞানের ভাগ করা কোন গ্রুপেই পড়ে না।আলতা ,লিপস্টিকের রং ও লাল তা শরীরে থাকলেও হয়ত মানুষ এমন হয় না।শাহাবুদ্দিন এর রক্তের তৈরি এমন হল কেন ?তারা একাই নয় এমন রক্ত আরো আছে। অন্য কোন লাল রং ও এসব রক্তের এমন কাজ কে থুতু দিবে।এমন হলে মানুষ সমাজ হতে স্ত্রী, সন্তান কে ভুলে যাবে।এমন করে সত্যি তারা মানুষের মাঝে আছে ?ঘটনা কি আদৌ ও সত্যি?কিভাবে এই আচরন সত্যি হয়। সংবাদের শিরোনাম, এ তো রীতিমতো পরোক্ষভাবে পিতৃহত্যার সামিল ।তারা কি সত্যি তার সন্তান আর সত্যি ই কি এমন করেছে ?ঔরসের রক্তে ও করোনা।

সংক্রামক রোগের সুযোগে শাহাবুদ্দিন এর স্ত্রী, সন্তান যে ধৃষ্টতা আর অপকর্ম আর পারিবারিক ঔদ্ধত্য দেখাল তা কি স্বামী -স্ত্রী বা পিতা -সন্তান
সম্পর্কে কলংক দিল না?দিল তো ,অনেক স্থায়ী কলংক দিল !!!

আপনার মন্তব্য দিন

নিউজটি শেয়ার করুন..

এ জাতীয় আরো খবর..