1. engg.robel.seo@gmail.com : DAILY TEKNAF : DAILY TEKNAF
  2. bandhusheramizan@gmail.com : Mizanur Rahman : Mizanur Rahman
  3. engg.robel@gmail.com : The Daily Teknaf News : Daily Teknaf
রবিবার, ২৬ জানুয়ারী ২০২০, ০৫:১২ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ :
খেলাধূলার মাধ্যমে যোগ্য নাগরিক গড়ে তুলতে চাই : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা টেকনাফ উপজেলা ব্যাডমিন্টন কাপ উদ্বোধন করলেন সাবেক এমপি বদি কক্সবাজার জেলা পুলিশ লাইন্স মাঠে মাস্টার প্যারেড অনুষ্ঠিত! ভিক্ষুকের কোলে নবজাতক রেখে পালালেন তরুণী! বসন্তের আগমনী বার্তা !! টেকনাফ থানার পরির্দশক (তদন্ত) এবিএমএস দোহা জেলা পুলিশের শ্রেষ্ঠ পরিদর্শক নির্বাচিত! অল্প কথা,গল্প নয়! কক্সবাজার সদর মডেল থানায় ওসি অপারেশন হিসেবে মাসুম খানের যোগদান সেনাবাহিনীর শীতকালীন মহড়া প্রত্যক্ষ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কক্সবাজারে দিনব্যাপী মানবাধিকার রিপোর্টিং বিষয়ক প্রশিক্ষণ কর্মশালা সম্পন্ন

শেখ হাসিনা মানেই পূর্ণতা : মিজানুর রহমান মিজান

  • আপডেট টাইম বৃহস্পতিবার, ৩ অক্টোবর, ২০১৯

মিজানুর রহমান মিজান,ডেইলি টেকনাফ ::কর্মে,সৃষ্টিশীলতায় যুগে যুগে যারা দৃষ্টান্ত সৃষ্টি করে যাচ্ছেন তাদের নিয়ে স্ট্যাডি করলে দেখা যায় বহুমুখী গুনাবলীতে আপন আলোয় আলোর বাতিঘর তারা। তাদের চিন্তাশক্তি,গবেষনার দৃষ্টিভঙ্গি দশ জনার মত নয়,ব্যতিক্রমি ও গতানুগতিক ধারার একটু আলাদা উজ্জলতায় থাকে ভরপংর।সমাজের একজন গুনী বা মহাগুনীজন চিনবে অন্য একজন অসাধারণ বা গুনী মহগুনীজনকে।তাইতো কোন এক উদাহরণে পশ্চিম বাংলার নোবেল জয়ী অর্থনীতিবিদ অমর্ত্য সেন এক আলাপচারিতায় বলেছিলেন, ‘শেখ হাসিনার রাজনৈতিক নেতৃত্বে আসা একটি দুর্ঘটনা। তাঁকে নেতৃত্বের জন্য গড়ে তোলা হয়নি। যেমন গড়ে তোলা হয়েছিল শ্রীমতি ইন্দিরা গান্ধীকে কিংবা বেনজীর ভুট্টোকে। তিনি নেতৃত্বে এসে শিখেছেন। কখনো হোঁচট খেয়েছেন, পরাজিত হয়েছেন, বাধা পেয়েছেন। নানা প্রতিকূলতা, ঘাত-প্রতিঘাত এবং বাধা পেরিয়েই তিনি জনগণের নেতা হয়েছেন আগে, পরে হয়েছেন দলের নেতা। তিনি হলেন, পুড়ে সোনা হওয়ার মতো একজন মানুষ। এজন্যই তিনি মানুষের হৃদস্পন্দন শুনতে পান। মানুষের আকাঙ্ক্ষার সঙ্গে তিনি তাল মেলান। সময়ের সঙ্গে তিনি নিজেকে গড়ে তোলেন। এজন্য শেখ হাসিনা সব-সময়ই উজ্জ্বল, সব সময়ই জনপ্রিয়। তিনি প্রতিনিয়ত তাঁর অবস্থানকে অতিক্রম করছেন।’

শেখ হাসিনার জন্মদিন এলেই, এই কথাটা আমার কানে বাঁজে। সব সময় আমার মধ্যে এক প্রশ্ন জাগে, ১৯৭৫ এর ১৫ আগস্টের নৃশংসতা যদি না ঘটতো, তাহলে শেখ হাসিনা কি করতেন? অনেক দিন আমি এই প্রশ্নের উত্তর খুঁজেছি এবং অনেক গুলো উত্তর সাজিয়েছি। আওয়ামী লীগের নেতা না হলেও শেখ হাসিনা একজন রত্নগর্ভা মা হিসেবেও খ্যাতির চূঁড়ায় থাকতেন। পৃথিবীতে এরকম ক’জন মা আছেন, যাঁর দু সন্তানই তাঁদের কর্মক্ষেত্রে বিশ্ব পরিচিত? প্রধানমন্ত্রী না হলেও শুধু একজন আদর্শ সন্তান হিসেবে তিনি কোটি মানুষের অনুকরণীয় হতেন। পিতা-মাতার প্রতি সম্মান কীভাবে দেখাতে হয়, সে আলোচনায়, লেখায় তাঁর নাম আসতো, তাঁকে নিয়ে চর্চা হতো।

ক্ষমতায় না থাকলেও, শেখ হাসিনা একজন আদর্শ বোন হতে পারতেন। শিল্প, সাহিত্য, কবিতায়, নাটকে কিংবা সিনেমায় তাঁর চরিত্র তৈরি করা হতো। ভাই বোনদের প্রতি তাঁর যে অনুভূতি ভালবাসা, তা তো যে কোনো সমাজের জন্যই এক দৃষ্টান্ত।

কিছু না করলেও, শুধু সাহিত্য চর্চা আর লেখালেখি করেই তিনি বেগম রোকেয়া, সুফিয়া কামালের মতো সুশীল ব্যক্তিত্ব হতে পারতেন। প্রয়াত সৈয়দ শামসুল হক, একদা দু:খ করে বলেছিলেন, ‘তিনি (শেখ হাসিনা) কেন যে সাহিত্য চর্চাটা নিয়মিত করলেন না, বাংলা সাহিত্য একজন ভালো লেখক পেত।’

রাজনীতি না করে একজন সমাজ সংস্কারক হিসেবেও তিনি খ্যাতির চূঁড়ায় যেতে পারতেন। নারীর অধিকারের যে ভাবনাগুলো তিনি তাঁর রাজনৈতিক কর্মসূচির মধ্যে এনেছেন, তা অবলীলায় সামাজিক আন্দোলনের ইস্যু হতে পারতো। শুধু মায়ের নামে সন্তানের পরিচিতি। এই একটা বিষয়ই পুরো সমাজকে আলোড়িত করতো।

রাজনীতির ডামাডোলে না থাকলে, তাঁর মহানুভবতা, মানবিকতা নিয়ে এদেশের মানুষ গর্বে বুক ফোলাতো। তিনি নীরবে জাতির পিতা মোমোরিয়াল ট্রাস্ট থেকে যত শিশুর পড়ার খরচ যোগান, যত গরীব মানুষের চিকিৎসা করান-এসব তাঁর রাজনীতির আড়ালে লুকিয়ে থাকে। রাজনীতি না করলে একজন মানবিক মানুষ হিসেবে তাঁকে এদেশের মানুষ শ্রদ্ধা করতো।

সবকিছু থেকে দূরে থাকলেও, শুধু মানুষের জন্য ভালোবাসা। খাদহীন অকৃত্রিম প্রাণখোলা হাসির জন্যই তিনি হতে পারতেন, ‘প্রিয় মানুষ’। যে মানুষের কাছে আসলেই ভুলে যাওয়া যায় সব কষ্ট, বেদনা, দু:খ।

আসলে যে পরিচয়েই পরিচিত করা হোক না কেন, শেখ হাসিনা একজন আলোকিত মানুষ। পরিপূর্ণ মানুষ। শেখ হাসিনা মানেই পূর্ণতা। সত্যিকারের মানুষের সবচেয়ে ভালো উপমার নাম-শেখ হাসিনা।চলবে….

মিজানুর রহমান মিজান

আপনার মন্তব্য দিন

নিউজটি শেয়ার করুন..

এ জাতীয় আরো খবর..