1. engg.robel.seo@gmail.com : DAILY TEKNAF : DAILY TEKNAF
  2. bandhusheramizan@gmail.com : Mizanur Rahman : Mizanur Rahman
  3. engg.robel@gmail.com : The Daily Teknaf News : Daily Teknaf
সেন্টমার্টিনে বিজিবি সীমান্ত সুরক্ষা ও মাদক চোরাচালান প্রতিরোধ করবে’ - ডেইলি টেকনাফ
মঙ্গলবার, ২২ জুন ২০২১, ০১:৫৬ অপরাহ্ন
সর্বশেষ :
টেকনাফে ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর কোমলমতী শিক্ষার্থীদের মাঝে বাইসাইকেল বিতরণ করেন: সাবেক এমপি বদি টেকনাফ পৌরসভার নিজস্ব ভবন নির্মাণ করা হবে সিনিয়র সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ শাহ্পরীর দ্বীপে ভাসমান ড্রামসেতু নির্মাণ করে দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন নুর হোসেন চেয়ারম্যান টেকনাফ সাংবাদিক ফোরামের ঈদ পুণর্মিলনী ও সাধারন সভায় নতুন কমিটি গঠিত টেকনাফের আবুল কালাম মেম্বারের জানাজায় হাজারো মানুষের ঢল টেকনাফে আবুল কালাম মেম্বারের মৃত্যুতে সাবেক এমপি বদি’র শোক কক্সবাজার জেলায় শ্রেষ্ট পদক পেলো ওসি সহ টেকনাফের ৩কর্মকর্তা বাংলাদেশ ক্ষুদ্র মৎস্যজীবী জেলে সমিতি টেকনাফ পৌর শাখর কমিটি অনুমোদন টেকনাফ পৌর এলাকার নিম্ন আয়ের মানুষজনের মধ্যে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করেন মেয়র হাজ্বী মোহাম্মদ ইসলাম টেকনাফ উপজেলার ন‍্যাচার পার্ক সংলগ্ন খেলার মাঠ দখলমুক্ত করতে মানববন্ধন

সেন্টমার্টিনে বিজিবি সীমান্ত সুরক্ষা ও মাদক চোরাচালান প্রতিরোধ করবে’

  • আপডেট টাইম বুধবার, ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

মিজানুর রহমান মিজান, টেকনাফ :: বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মো. সাফিনুল ইসলাম বলেছেন, সেন্টমার্টিন ভৌগলিক অবস্থানগত কারণে গুরুত্বপূর্ণ হওয়ায় এখানে বিজিবি সীমান্ত সুরক্ষা ছাড়াও মাদক চোরাচালান প্রতিরোধে দায়িত্ব পালন করবে। সেই সঙ্গে সেন্টমার্টিনে বিজিবিকে আরও সুসংগঠিত করা হবে।

মঙ্গলবার (২৪ সেপ্টেম্বর) দুপুরে সেন্টমার্টিন সফরকালে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এসব কথা বলেন।

এর আগে দুপুর দেড়টার দিকে সেনাবাহিনীর বিশেষ এক হেলিকপ্টারে করে তিনি সেন্টমার্টিন পৌঁছান। এরপর তিনি মোটরসাইকেলে চড়ে সেন্টমার্টিনের পুনঃস্থাপিত বর্ডার আউট পোস্ট (বিওপি) এবং বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা পরিদর্শন করেন।

উল্লেখ্য, চলতি বছর ৭ এপ্রিল থেকে সেন্টমার্টিনে বিজিবি মোতায়েন করা হয়। এর আগে ১৯৯৭ সাল পর্যন্ত সেন্টমার্টিনে তৎকালীন বিডিআর (বাংলাদেশ রাইফেলস) মোতায়েন ছিল।

সেন্টমার্টিন থেকে বিভিন্ন সময় রোহিঙ্গা আটক করেছে কোস্টগার্ড, পুলিশ, র‌্যাব ও বিজিবি। বিভিন্ন সময় ওই এলাকায় দস্যুতার ঘটনাও ঘটে। এসব নিয়ন্ত্রণে সেন্টমার্টিনে একটি পুলিশ ফাঁড়িও রয়েছে। তবে বর্তমান সরকার মনে করছে, সেন্টমার্টিনের নিরাপত্তায় বিজিবি মোতায়েন দরকার।

প্রসঙ্গত, ২০১৮ সালের অক্টোবরে সেন্টমার্টিনকে নিজেদের অংশ বলে দাবি করেছিল মিয়ানমার। মিয়ানমার সরকারের জনসংখ্যা বিষয়ক বিভাগের ওয়েবসাইটে তাদের দেশের মানচিত্রে সেন্টমার্টিনকে তাদের ভূখণ্ডের অংশ দেখানো হয়। ৬ অক্টোবর বাংলাদেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় মিয়ানমারের তৎকালীন রাষ্ট্রদূত উ লুইন ও’কে তলব করে এর প্রতিবাদ জানায়। এরপর মিয়ানমার মানচিত্র থেকে সেটি পরিবর্তন করে।

কক্সবাজার সংলগ্ন প্রবাল দ্বীপ সেন্টমার্টিন সৃষ্টি থেকে বাংলাদেশের ভূখণ্ডের অন্তর্গত। ব্রিটিশ শাসনাধীন ১৯৩৭ সালে যখন বার্মা ও ভারত ভাগ হয় তখন সেন্টমার্টিন ভারতে পড়েছিল। ১৯৪৭ সালে ভারত ভাগের সময় সেন্টমার্টিন পাকিস্তানের অন্তর্ভুক্ত হয়। ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের স্বাধীনতার পর থেকে এটি বাংলাদেশের অন্তর্গত। ১৯৭৪ সালে সেন্টমার্টিনকে বাংলাদেশের ধরে নিয়েই মিয়ানমারের সঙ্গে সমুদ্রসীমা চুক্তি হয়।

১৯৯৭ সালের আগ পর্যন্ত সেন্টমার্টিন দ্বীপে বিজিবি (তৎকালীন বিডিআর) মোতায়েন ছিল। এরপর থেকে সেন্টমার্টিনে বিজিবির কার্যক্রম বন্ধ ছিল। এতদিন ধরে কোস্টগার্ড সদস্যরা ওই সীমানা পাহারা দিয়ে আসছিল। কিন্তু চলতি বছরের ৭ এপ্রিল থেকে সেন্টমার্টিনে বিজিবির একটি বিওপি ক্যাম্প স্থাপনের কার্যক্রম চলছে। তাই সেখানে টহল দিচ্ছে বিজিবি। এটা নিয়মিত টহলের অংশ। প্রতিদিন দ্বীপের বিভিন্ন এলাকায় স্বাভাবিকভাবেই টহল দিচ্ছে বিজিবি।

সেন্টমার্টিন ইউপি চেয়ারম্যান নুর আহমদ বলেন, দ্বীপে বিজিবি মোতায়েনের ফলে নিরাপত্তা ব্যবস্থা আরো জোরদার হয়েছে। এতে স্থানীয় অধিবাসী ও পর্যটকরা নিরপত্তাহীনতা থেকে মুক্ত রয়েছে

আপনার মন্তব্য দিন

নিউজটি শেয়ার করুন..

এ জাতীয় আরো খবর..